কম্পিউটার বানাতে কি কি লাগে ও ভালো মানের পিসি কিনতে কত টাকা লাগবে

কম্পিউটার বানাতে কি কি লাগে

আজকে আমরা দেখবো কম্পিউটার বানাতে কি কি লাগে?১টি ভালো মানের পিসি কিনতে কত টাকা লাগবে,কম্পিউটার যন্ত্রাংশের নাম ও দাম বিস্তারিত আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ আশা করি আপনাদের ভালো লাগবে,

প্রযুক্তি গত দিক থেকে কম্পিউটার ব্যবহার হয়ে থাকে মোবাইল ডিভাইসের পরই, দিন দিন কম্পিউটার ব্যবহার কারির সংখ্যা বেড়েই চলেছে,

বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি মোবাইল ও কম্পিউটার ব্যবহার কারীর সংখ্যা বেড়েছে covid-19 করোনা ভাইরাসের সময় কালীন স্কুল কলেজ বন্ধ ছিল,

তাই অনলাইন ক্লাস করার জন্য অনেক স্টুডেন্ট মোবাইল ও কম্পিউটার ব্যবহার করেছে,তাই আজকে আমরা দেখবো

,স্টুডেন্ট, অফিস ও অনলাইন কর্মী ফ্রীলান্সার দের জন্য কম্পিউটার কিনতে কিকি লাগবে ও নতুন কম্পিউটার দাম কত ২০২২ সালে.

কম্পিউটারের অনেক কোম্পানি বা ব্র্যান্ড রয়েছে তার মধ্যে বড় বড় কোম্পানি গুলি হলো কম্পিউটারের অনেক কোম্পানি বা ব্র্যান্ড রয়েছে

তার মধ্যে বড় বড় কোম্পানি গুলি হলো ,Apple HP,Dell, Asus তার মধ্যে বাংলাদেশে Doel Computer Walton ইত্যাদি রয়েছে

তবে আজকে আমরা কোন কোম্পানি বা ব্র্যান্ড নিয়ে আলোচনা করবো না আজকে আমরা কম টাকার মাজে একটি পিসি কিভাবে তৈরি করতে হয়.

নামাজ ভঙ্গের কারণ কয়টি 19 টি ও কি কি

কম্পিউটার বানাতে কি কি লাগে?

একটি কম্পিউটার বানাতে যে যন্ত্রাংশ অবশ্যই লাগে সেগুলি নিয়ে আমরা আলোচনা করবো,আর কিছু যন্ত্রাংশ যে গুলি না হলেও কম্পিউটার চলবে সেগুলি নিয়ে লাস্টে কথা বলবো,

কম্পিউটার তৈরিতে যে যন্ত্রাংশ গুলি অবশ্যই লাগবে সেগুলি হলো

  • মনিটর
  • মাদারবোর্ড
  • প্রসেসর
  • রেম
  • হার্ডডিস্ক
  • পাওয়ার সাপ্লাই
  • কেসিং
  • কি-বোর্ড,
  • মাউস

কম্পিউটারে এই যন্ত্রাংশ অবশই লাগবে,আরো কিছু যন্ত্রাংশ রয়েছে যে গুলি ছাড়াও কম্পিউটার চলবে তবে আরো যন্ত্রাংশ ব্যবহার করলে আপনার কম্পিউটার স্পিড বাড়বে এবং বড় বড় সব কাজ করতে পারবেন,

যেহেতু আমরা স্টুডেন্ট , অফিস ও অনলাইন কর্মী ফ্রীলান্সার দের জন্য কম্পিউটার তৈরি করবো সেহেতু আমাদের এতটুকু যথেষ্ট,

কম্পিউটারের মনিটর হল একটি অতি প্রয়োজনীয় অংশ যে মনিটরে আমরা কম্পিউটারের ইনপুট কিত বিভিন্ন আউটপুট দেখতে পাই এ কম্পিউটার গুলির মনিটর বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন ব্যান্ডের বিভিন্ন সাইজের হয়ে থাকে,

কম্পিউটার মনিটর

তবে ভালো ভালো ব্র্যান্ডের কোম্পানিগুলো এই মনিটরের তিন বছর গ্যারান্টি দিয়ে থাকে ,

কিন্তু চাইনা কিছু কম দামি মনিটর রয়েছে যেখানে এক বছরের গ্যারান্টি দেওয়া হয় প্রোডাক্টট গুলি গুণগত মানের দিক থেকে ভালো নাই

কোম্পানির ব্র্যান্ড অনুযায়ী একেক সাইজের মনিটর একেক রকম দাম হয়ে থাকে সাধারণত কম বাজেটের ভিতর 10 থেকে 20 হাজার টাকার মধ্যে মোটামুটি ভালো একটি মনিটর পেয়ে যাবেন ভালো একটি ব্র্যান্ডের কোম্পানির

কিছু ভালো ভালো ব্র্যান্ডের কোম্পানির মনিটরে নাম সমূহ

  • অ্যাপেল
  • এলজি
  • এইচপি
  • আসুস
  • স্যামসাং,ইত্যাদি

কম্পিউটার মাদারবোর্ড

কম্পিউটারের মাদারবোর্ড হচ্ছে কম্পিউটারের মৌলিক একটি যন্ত্রাংশ এই মাদারবোর্ডে কম্পিউটারের সকল গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রপাতিগুলো বসানো হয়

এবং এই মাদারবোর্ডের সাথে সকল যন্ত্রাংশগুলো যুক্ত থাকে ,মাদারবোর্ডের ব্র্যান্ড ও কোয়ালিটি অনুযায়ী অনেকগুলো কোম্পানি রয়েছে তারমধ্যে সবচেয়ে ভালো কিছু কোম্পানি হলো

মাদারবোর্ড ব্র্যান্ড এবং মডেল অনুযায়ী দাম বিভিন্ন থাকে তবে ৮ থেকে ১৫০০ হাজার টাকার মাঝে মোটামুটি ভাল একটি ব্র্যান্ডের মাদারবোর্ড পেয়ে যাবেন

  • আসুস
  • গিগাবাইট
  • এমএসআই
  • আরেকটি কম দামে মোটা মোটি ভালো মাদারবোর্ড রয়েছে সেটা হচ্ছে ই-সনিক

কম্পিউটার প্রসেসর

প্রসেসর এর কাজ হচ্ছে আমাদের ইনপুট করা ডকোমেট কে প্রসেসিং করা প্রসেসর যত ভালো হবে কম্পিউটার তত দ্রুত তথ্যগুলো প্রসেসিং করতে পারবে

প্রসেসর যত ভালো হবে যত দামি হবে কম্পিউটার তত কম সময়ে বেশি কাজ করতে সক্ষম হবে এবং কম্পিউটার তত বেশি গতি সম্পন্ন হবে

কম্পিউটারের মাদারবোর্ড এর ভিতরে বসাতে হয় এই প্রসেসরটি কম্পিউটারের প্রসেসর অতি গুরুত্বপূর্ণ এবং আকারে ছোট কিন্তু দামে অনেকাংশেই বেশি

প্রসেসর তৈরি করে সাধারণত দুটি কোম্পানি একটি হচ্ছে ইন্টেল আরেকটি হচ্ছে এ.এম ডি বাজারে সাধারণত

এই কোম্পানি দুটি প্রসেসর ১০০% বাজার দখল করে রয়েছে তন্মধ্যে ইন্টেলের প্রসেসর সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়

প্রসেসরের দুইটি কোম্পানি রয়েছে তন্মধ্যে নতুন প্রসেসর কিনলে 15 থেকে 30 হাজার টাকার মধ্যে মোটামুটি ভালো কনফিগারেশনের প্রসেসর আপনি পেয়ে যায়

কম্পিউটার রেম

রেম শব্দটি সংক্ষিপ্ত এর সম্পূর্ণ নাম হচ্ছে রেনডম এক্সেস মেমোরি,রেম হচ্ছে কম্পিউটারের অভ্যন্তরীণ স্পেস বা মেমোরি

যেমন আমাদের ফোনে যে মেমোরি থাকে সেই মেমোরিতে আমরা শুধুমাত্র অডিও ভিডিও ছবি ইত্যাদি রাখতে পারি,

কিন্তু আমাদের ফোনের অ্যাপস গুলি যে জায়গায় থাকে সেটা হচ্ছে রেম তেমনি ভাবে কম্পিউটারের সফটওয়্যার গুলি যেই জায়গার উপর থাকে সেটা হচ্ছে কম্পিউটারের রেম

আর অডিও-ভিডিও বিভিন্ন ডকুমেন্ট যেখানে থাকে সেটা হচ্ছে এস এস ডি, অথবা হার্ডডিস্ক

তবে GB যত বেশি হবে এবং গিগাহার্জ যত বেশি হবে সেটার দাম তত বেশি হবে সাধারণত সত্য 2000 থেকে শুরু করে 5000 টাকার ভিতরে মোটামুটি ভালো একটি রেম আপনি পেয়ে যাবেন

কম্পিউটার হার্ডডিস্ক

হার্ডডিক্স হলো কম্পিউটারের একটি স্পেস যেখানে কম্পিউটারের বিভিন্ন ডকুমেন্ট অডিও ভিডিও ইমেজ ডাউনলোড সফটওয়্যার থাকে এই হার্ডডিস্ক দুইজন হয়ে থাকে,

একটি হচ্ছে এসএসডি আরেকটা হচ্ছে হার্ডডিক্স এসেছিল হার্ডডিক্স এর তুলনায় কয়েক গুণ বেশি ভালো হয়ে থাকে এবং গতি সম্পন্ন হয়ে থাকে তাই কম্পিউটারে যদি এসএসডি ব্যবহার করা যায়

তাহলে হার্ডডিক্স এর তুলনায় অনেক বেশি কম্পিউটার গতি সম্পন্ন হয় এবং কম সময়ে বেশি কাজ করতে পারেন হার্ডডিস্ক যত বেশি নিতে পারবেন

আপনি আপনার কম্পিউটারে ততবেশি ডকুমেন্ট রাখতে পারবেন হার্ডডিক্স বেশকিছু ব্যান্ড রয়েছে তন্মধ্যে বিখ্যাত কিছু হচ্ছে ওস্টেন্ডিজ /ডাব্লিউ ডি, তশিবা ইত্যাদি

কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক দুই ধরনের হয় হার্ডডিস্ক গুলি সাধারণত পনেরশো থেকে 3000 টাকার ভিতরে আপনি পেয়ে যাবেন

কিন্তু যদি এসএসডি কিনতে চান তাহলে তিন থেকে ছয় হাজার টাকার ভিতরে মোটামুটি ভালো একটি এসএসডি আপনি পেয়ে যাবেন

কম্পিউটার পাওয়ার সাপ্লাই

কম্পিউটারের পাওয়ার সাপ্লাই হচ্ছে কম্পিউটারে বৈদ্যুতিক পাওয়ার সরবারহ করে দেওয়া ,

কম্পিউটার কেনার সময় কম্পিউটার কত ওয়াট ব্যবহার করতে সক্ষম সে কম্পিউটারে পাওয়ার সাপ্লাই তত ওয়ার্ডের চেয়ে বেশি দিতে হবে তাহলে আপনার কম্পিউটারটি ভালোভাবে চলবে,

এখানে কমদামি পাওয়ার সাপ্লাই রয়েছে আবার বেশি দামে অনেক ভালো ভালো পাওয়ার সাপ্লাই রয়েছে তবে কম্পিউটার যদি কম দামে ক্রয় করে থাকেন

অর্থাৎ যন্ত্রাংশ গুলি লো লেভেল হয় তাহলে পাওয়ার সাপ্লাইটি কমদামি হলেও চলবে কিন্তু কম্পিউটার যদি বেশি দামি হয় পাওয়ার সাপ্লাই বেশি দামে কেনা উচিত

কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ গুলি যত দামি হয় পাওয়ার সাপ্লাই ততো বেশি ওয়ার্ড এর প্রয়োজন হয় ,

তাই তত বেশি টাকা খরচ হয় সাধারণত ২৫০০ক থেকে ৬০০০ টাকার মধ্যে মোটামুটি ভালো একটি পাওয়ার সাপ্লাই আপনি পেয়ে যাবেন

কম্পিউটার কেসিং

কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ গুলিযে বক্সের ভিতরে রাখা হয় তাকে মূলত কেসিং বলা কেচিং গুলি যেন দেখতে সুন্দর হয় এবং কোয়ালিটিফুল হয়

সেদিকে নজর দেওয়া উচিত কারণ শুধুমাত্র কেসিং টি আমাদের চোখের সামনে সব সময় থাকে কিন্তু ভিতরের যন্ত্রাংশ গুলি আমরা কখনোই দেখি না

তাই আমি মনে করি কাটিংটা অনেক সুন্দর থাকলে মনে হবে কম্পিউটার টা অনেক ভালো দামি ,

ক্যাচিং মূলত 1000 টাকা থেকে শুরু করে ৪০হাজার ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে

সাধারণত তিন থেকে পাঁচ হাজার টাকার মাঝখানে ভাল মানের কেসিং পাওয়া যায়

কম্পিউটার কি-বোর্ড

কি-বোর্ড হচ্ছে কম্পিউটারের বাটন গুলো সাধারণত আমরা কম্পিউটারে কোন ইনফরমেশন বা তথ্য ইনপুট করার জন্য আমরা কি-বোর্ড এ লিখে থাকি

এবং সেই ইমপোর্ট কৃত ইনফর্মেশন কম্পিউটারের প্রসেসিং করার মাধ্যমে আমাদেরকে মনিটরে দেখা

মোটামুটি কম দামের মাঝে কি-বোর্ড গুলি ৬০০ থেকে ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে

কম্পিউটার মাউস

কম্পিউটারের মাউস দিয়ে কম্পিউটারের ভিতরে অর্থাৎ মনিটরে বিভিন্ন ফোল্ডার অপেন ক্লোজ করা হয়

এবং বিভিন্ন টাক্স কমপ্লিট করা হয় এ মাউস এর মাধ্যমে, মাউস সাধারণত কম বাজেটের ভিতর 600 থেকে 3000 টাকার মধ্যে পাওয়া যায়,

কিছু কিছু গেমিং মাউস রয়েছে সেগুলো 50000 টাকার কাছাকাছি হয়ে থাকে।

কম্পিউটার বানাতে কি কি লাগে এবং দাম কত নিয়ে মন্তব্য

আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন যে কম্পিউটার বানাতে কি কি লাগে, এবং কেমন টাকা খরচ হতে পারে

আপনির যদি আরো কোন কিছু জানার প্রয়োজন হয়ে থাকে তাহলে আমাদেরকে কমেন্ট করতে পারেন
ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন পিতা-মাতার সেবা করবেন ভালো লাগলে আমাদের পোস্টটি শেয়ার করবেন

আসসালামু আলাইকুম |

One Comment on “কম্পিউটার বানাতে কি কি লাগে ও ভালো মানের পিসি কিনতে কত টাকা লাগবে”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *