ফোন স্লো হলে করণীয় মোবাইল ফাস্ট করার উপায়

ফোন স্লো হলে করণীয়

ফোন স্লো হলে করণীয় মোবাইল ফাস্ট করার উপায়,বর্তমানে  সবচেয়ে জনপ্রিয় মোবাইলের অপারেটিং সিস্টেম হচ্ছে অ্যান্ড্রয়েড। দিনে দিনে আন্ড্রয়েড ফোনের জনপ্রিয়তা বেড়েই চলছে।

পৃথীবির প্রায় অর্ধেকের ও বেশি মানুষ অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে। কেউ চায়না তাদের স্মার্টফোন স্লো কাজ করুক। কিন্তু অনেকেই এই সমস্যায় ভুগে থাকেন।

 কিছু কারনে এসব সমস্যা হয়ে থাকে। এই কারনগুলো যদি  এড়িয়ে চলা যায় তাহলে সমস্যা থেকে সমধান পাওয়া সম্ভব। চলুন জেনে নেওয়া যাক ফোনের গতি বাড়ানোর কিছু ট্রিক্স:

ফোন স্লো হলে করণীয়

আপনার মোবাইল ফোনটি যদি স্লো হয়ে যায় তাহলে আপনার করোনিয় কি হবে,

কি ভাবে আপনার হাতের মোবাইল ফন্ট ফাস্ট করতে পারেন নিম্নে এই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো

আপনার মোবাইল তো স্লো হয়ে যায় তাহলে আপনার করণীয় হলো

  • ভাল মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা
  • অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ গুলো ডিলিট করা
  • ফোনের স্টোরেজ পরিষ্কার করা
  • অপ্রয়োজনীয় উইজেট মুছে ফেলা
  • স্টার্ট-আপ অ্যাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা
  • অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ এর ক্যাশ মুছে ফেলা
  • ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করা

মোবাইল ফাস্ট করার উপায়

নিত্য প্রয়োজনীয় হাতের মোবাইল ফোনটি চালানোর সময় যখন স্লো হয়ে যায় তখন মাথাটা গরম হয়ে যায়,

আবার মাঝে মাঝে তো রাগে কেউ কেউ মোবাইল টি আসার মেরে বসে

তাই এই সমস্যা থেকে পরিত্রান পেতে হলে নিম্নে বর্ণিত কাজ গুলি আপনার করতে হবে আশা করি অবশ্যই আপনার মোবাইল ফোনটি অনেক টায় ফাস্ট হবে ইন্সাল্লাহ

এখন আমরা দেখবো কিভাবে স্লো হওয়া মোবাইল ফোন আমরা ফাস্ট করতে পারি অর্থাৎ

মোবাইল ফাস্ট করার উপায় সমূহ কি কি তা নিম্নে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো

প্রযুক্তি

ভাল মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা:

সাধারনত বেশির ভাগ অ্যান্ড্রয়েড ফোনে মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা হয়। আমরা মোবাইল ফোনের যায়গা বাড়ানোর জন্য মেমোরি কার্ড ব্যবহার করে থাকি ।

কিন্তু মেমোরি কার্ড ব্যবহার করার সময় মেমোরি কার্ডটি মানসম্মত কি না তা যাচাই করে দেখি না । নিম্নমানের মেমোরি ব্যবহার করার ফলে একদিকে যেমন অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি কমে যায়

অপরদিকে মেমোরি কার্ড ডেটা ট্র্যান্সফারের গতি কম থাকে । এক্ষেত্রে, আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল কম্পিউটার এ ব্যাকআপ রেখে মেমোরি কার্ড ফরম্যাট করে

আবার ব্যবহার করে দেখতে পারেন । অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি ভাল রাখতে হলে আপনি অবস্যই মান সম্মত মেমোরি কার্ড ব্যবহার করবেন ।

অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ গুলি মুছে ফেলুন

অনেকের মোবাইল প্রচুর পরিমানে আন্ড্রয়েড অ্যাপস ইন্সটল করতে দেখা যায় তার মধ্যে অনেক অ্যাপস অযথা ইন্সটল করা থাকে।

 অর্থাৎ, অ্যাপস ব্যবহার না করলেও অ্যাপস ইন্সটল করে রাখেন। বেশি পরিমানের অ্যাপস থাকার ফলে মোবাইল স্লো কাজ করে তাই অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস আনইন্সটল করে দিন ।

আর সেই অ্যাপস এর ব্যাকাপ ফাইল রেখে দিন।কেননা, অতিরিক্ত অ্যাপস আপনার আন্ড্রয়েড ফোনের গতি কমিয়ে দিবে।

ডিভাইসের স্টোরেজ পরিষ্কার করুন

অনেকের অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ অপ্রয়োজনীয় ফাইল দিয়ে পূর্ণ করা থাকে,

 যার জন্য অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি কমে যায়। এক্ষেত্রে, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ থেকে অপ্রয়োজনীয় ফাইল ডিলেট করে দিন। 

এতে করে আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের গতি বাড়বে, অন্যদিকে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ খালি হবে ।

অপ্রয়োজনীয় উইজেট মুছে ফেলুন

অ্যান্ড্রয়েড প্রচুর ওইজেট রয়েছে। সাধারণত এসব ওইজেট অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। 

এছাড়া নানা কাজে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা এসব ওইজেট ব্যবহার করেন। অনেকের মোবাইল প্রচুর পরিমানে ওইজেট ব্যবহার করতে দেখা যায়।

 কিন্তু অনেকেই জানেন না যে অতিরিক্ত ওইজেট আপনার ডিভাইস এর গতি কমিয়ে দিতে পারে। 

তাই, আপনার আন্ড্রয়েড ফোন এ অপ্রয়োজনীয় ওইজেট থাকে তাহলে সেগুলো মুছে ফেলুন।

 আর যথাসম্ভব কম ওইজেট ব্যবহার করুন। এতে, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি বেড়ে যাবে।

স্টার্ট-আপ অ্যাপ নিয়ন্ত্রণে রাখুন

আমরা অ্যান্ড্রয়েড বেশ কিছু অ্যাপস দেখি যেসব অ্যাপস অটো স্টার্ট আপ ফিচার সমৃদ্ধ। 

অর্থাৎ, অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস চালু হওয়ার সাথে সাথে এসব অ্যাপস স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হয়ে যায়। যাদের র‌্যাম কম তাঁরা এ ধরনের অ্যাপস যথাসম্ভব কম ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

 কেননা, এতে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস এর গতি কমে যেতে পারে।

 এছাড়া, আপনি চাইলে এসব অ্যাপস এর স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্টার্ট আপ বন্ধ করতে পারেন।

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ এর ক্যাশ মুছে ফেলা

আন্ড্রয়েড অ্যাপস ব্যবহার করার ফলে অ্যাপস এর ক্যাশ আপনার আন্ড্রয়েড ডিভাইস স্লো করে দিতে পারে।

 তাই, অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি বাড়ানোর জন্য অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস এর ক্যাশ মুছে ফেলতে পারেন। 

এসব ক্যাশ মুছে ফেলার জন্য আপনি চাইলে অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন। এতে, আপনার ফোনের গতি কিছুটা বাড়বে ।

ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট

যদি আপনার অ্যান্ড্রয়েড অবস্থা অতিরিক্ত খারাপ হয়ে থাকে, তাহলে আপনি ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করে নিতে পারেন। 

ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করার আগে অবশ্যই আপনার আন্ড্রয়েড এর সমস্ত ডাটা এর ব্যাকআপ নিয়ে রাখবেন।

 কেননা, ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করলে ফোনের সমস্ত ডাটা মুছে যায়। 

এরপর, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি সবকিছু নতুন ভাবে সেট-আপ করুন।

ফোন স্লো হলে করণীয় এবং মোবাইল ফাস্ট করার উপায় নিয়ে শেষ কথা

ফোন স্লো হলে করণীয় কি এবং মোবাইল ফাস্ট করার উপায় সমূহ কি কি আশা করি বিস্তারিত ভালো ভাবে বোজতে পেরেছেন

আশাকরি উপরের নিয়ম গুলি ফলো করলে আপনার মোবাইল ফোনটি অবশ্যই ১০০% ফাস্ট হবে ইনশাআল্লাহ

আশাকরি পোস্টটি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে যদি আমাদের পোস্টি আপনাদের কাছে ভালো লাগে তাহলে আপনার ফ্যামিলি মেম্বার এবং বন্ধুদর সাথে শেয়ার করতে বলবেন না

আপনাদের কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে নির্দ্বিধায় আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে পারেন,

আমরা খুব দ্রুত উত্তর দেওয়ার জন্য চেষ্টা করবো। ভালো থাকবে সুস্থ থাকবে আসসালামু আলাইকুম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *