গোসলের ফরজ কয়টি তিনটি কি কি,Gosoler Foroj ki ki

গোসলের ফরজ কয়টি তিনটি কি কি

আজকে আমরা দেখবো গোসলের ফরজ কয়টি তিনটি কি কি Gosoler Foroj হলে যে তিনটি ফরজের নিয়ম রয়েছে সে নিয়মগুলি পালন না করলে গোসল হবে কিনা বিস্তারিত আলোচনা করা হলো

গোসলের ফরজ ওয়াজিব ও সুন্নত এর হুকুম

গোসল করনের বেশ কয়েকটি াকোম রয়েছে তার মাঝখানে কোন কোন কাজের জন্য গোসল ফরজ হয়

আবার কখনো কখনো গোসল ওয়াযিব হয় আবার কখনো কখনো গোসল সুন্নত তো

আমি জানি শুক্রবার জুমার দিনে গোসল করা সুন্নত এবং অমুসলিম থেকে মুসলিম হলে গোসল করা ওয়াজিব হয়

এবং স্ত্রী সহবাস বা অন্য আরও কিছু কারণে গোসল ফরয হয় ,আজকে আমরা শুধু গোসল ফরজ নিয়ে আলোচনা করবো

ওযু ভঙ্গের কারণ কয়টি ৭টি ও কি কি দলিল সহ

গোসলের ফরজ কয়টি

বিভিন্ন মাজহাবের নিয়ম অনুসারে গোসলের ফরজ বিভিন্ন হয় তবে সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য এবং সকল মাযহাবের আমির সবচাইতে শ্রেষ্ঠ মাযহাব হানাফী মাজহাব এর মতে গোসলের ফরজ তিনটি

যদি কারো গোসল ফরজ হয় এবং তার চারপাশে পানি থাকা সত্ত্বেও সে পবিত্রতা অর্জন না করে তাহলে সে আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে যে বড় বড় ইবাদত রয়েছে সেগুলো করতে পারবে না,

যেমন নামাজ পড়তে পারবে না কোরআন শরীফ ধরতে পারবে না কাবা জিয়ারত করতে পারবে না ইত্যাদি

তবে গোসল ফরজ অবস্থায় রোজা রাখতে পারবে জিকির করতে পারবে ভালো কাজ করতে পারবে

নামাজ ভঙ্গের কারণ কয়টি 19 টি ও কি কি

Gosoler Foroj তিনটি কি কি

আমরা প্রথমদিকে আলোচনা করেছি যে মাযহাব বেঁধে গোসলের ফরজ বিভিন্ন হয় তবে হানাফী মাযহাবের মতে গোসলের পর তিনটি

  1. গড়গড়িয়া কুলি করা
  2. নাকের নরম অংশ পর্যন্ত পানি পৌঁছানো
  3. সমস্ত শরীর উত্তমরুপে ধৌত করা

গোসল করার সময় কিছু নিয়ম রয়েছে গোসল ফরয হলেও গোসল পালন করার সময় অনেকগুলো সুন্নত রয়েছে আজকে

যেহেতু আমরা গোসল ফরয নিয়ে আলোচনা করতেছি তাই আজকে গোসলের সুন্নত গুলি নিয়ে আলোচনা করলাম না

পরবর্তীতে গোসলের সুন্নত সমূহ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবেন ইনশাল্লাহ

Foroj Gosoler জন্য যে সব পানি পবিত্র

পানি দ্বারা পবিত্রতা অর্জনের জন্য ও পানির কিছু শর্ত রয়েছে পানির সাধারণত তিনটি গুণ রয়েছে পানির কালার ,পানির স্বাদ, ও পানির গন্ধ,

পানির এই তিনটি বৈশিষ্ট্য মধ্যে যদি যেকোনো দুটি বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান থাকে তাহলে সে পানি দ্বারা পবিত্রতা অর্জন করা যাবে

যেমন পানির কালার নষ্ট হয়ে গেছে অন্যরকম হয়ে গেছে কিন্তু পানির স্বাদ এবং পানির গন্ধ নষ্ট হয় না ঠিক আছে তাহলে সে পানি দ্বারা পবিত্রতা অর্জন করা যাবে.

  • বৃষ্টির পানি
  • সাধারণ কূয়ার পানি
  • ঝর্ণার, সাগর, নদীর পানি
  • বরফ গলা পানি
  • বড় পুকুর বা টেঙ্কের পানি

ফরজ গোসলের জন্য যেসব পানি পবিত্র নয়

পানির যে তিনটি বৈশিষ্ট্য রয়েছে সে তিনটি বৈশিষ্ট্যের মধ্যে যদি দুটি অনুপস্থিত থাকে তাহলে সে পানি দ্বারা পবিত্রতা অর্জন করা যাবে না

যেমন পানির স্বাদ ঠিক রয়েছে কিন্তু পানির কালার নষ্ট হয়ে গেছে এবং পানি গন্ধ চেঞ্জ হয়ে গেছে তাহলে সেই পানি দ্বারা পবিত্রতা অর্জন করা যাবে না

  • অপরিচ্ছন্ন বা অপবিত্র পানি
  • ফলের রস বা গাছ নিসৃতঃ পানি
  • কোন কিছু মিশানোর কারণে যে পানির বর্ণ, গন্ধ, স্বাদ এবং গারত্ব পরিবর্তিত হয়েছে।
  • অল্প পরিমাণ পানি: যাতে অপবিত্র জিনিস মিশে গেছে (যেমনঃ মূত্র, রক্ত, মল বা মদ)ইত্যাদি । এসব পানি
  • অযু বা গোসলের জন্য একবার ব্যাবহার করা হয়ে গেসে এমন পানি
  • অপবিত্র (হারাম) প্রাণী, যেমনঃ শূকর, কুকুর ও আন্যান্য হিংস্র প্রানীর পানকৃত পানির আবশিষ্ট

আশা করি বুঝতে পেরেছেন গোসলের ফরজ কয়টি ও কি কি এবং কেমন পানি দ্বারা ফরজ গোসলের পবিত্রতা অর্জন করা যাবে কেমন পানি দ্বারা ফরজ গোসলে পবিত্রতা অর্জন করা যাবে না

যদি আপনাদের কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করতে পারেন আমরা অবশ্যই উত্তর দেয়ার চেষ্টা করব

আর পোস্টটি যদি আপনার ভাল লাগে তাহলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আসসালামু আলাইকুম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *